Bangla kobita ebong kobita photo

Bangla kobita আধুনিক বাংলা কবিতা kobita photo


Bangla kobita- পড়তে ভালবাসেন ? তাহলে এই Bangla kobita গুলো পড়ুন আপনার মন ছুঁয়ে যাবে প্রতিটি কবিতা। আজ-কালকের Bangla kobita গুলো কেমন যেন হয়ে গেছে। এই কবিতাগুলোও আধুনিক কিন্তু আজগুবি নয় ।

লোকে কেন ব্লগ করে তার প্রধান কারণ

ব্লগিং করার প্রধান করণ


bengalweb
bengalweb

Bengalweb- এর যেকোনও সমস্যা নিয়ে আলোচনা করার জন্যই এই Blog. আমাদের আজকের আলোচ্য বিষয় why people Blog. হ্যাঁ এখন Bengalweb এর উপর মানুষের ঝোঁক খুব বাড়ছে। কিন্তু কেন? 

ব্লগিং করার কারণ কী ?

ব্লগিং করার কোনও নির্দিষ্ট কারণ নেই। বিভিন্ন মানুষ বিভিন্ন কারণে ব্লগিং করেন। আমরা সেই কারণগুলোকে তুলে ধরব। Bengalweb নিয়ে কাজ বাড়ছে এটা আনন্দের। bengalweb writing Bengali web series এগুলো মানুষকে খুব দ্রুত কাছে টানছে।  

banglablogger.in

আপনি কেন ব্লগিং করবেন সেটা পুরোপুরি আপনার উপত নির্ভর করছে। কিন্তু অন্যান্যরা কেন ব্লগিং করছে তার একটা আনুমানিক কারণ দেখানো হল। 

1. Networking 

আজকের দিনে নেটওয়ার্কিং খুব গুরুত্বপূর্ণ বিষয়, একে অপরের সঙ্গে জুড়ে থাকতে হয়। ব্যবসা বানিজ্য থেকে শুরু করে যেকোনও কাজের ক্ষেত্রে নেটওয়ার্ক থাকা খুব দরকার। শুধুমাত্র সোশাল মিডিয়া যথেষ্ট নয়।   


2. Hob/Interest in writing   

অনেকেই শুধুমাত্র লেখার নেশায় আর ভালবাসায় Bengalweb নিয়ে কাজ করেন। ধরুন আপনি গল্প বা কবিতা লেখান, বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় পাঠান (কয়েক মাস অপেক্ষার পর ছাপাও হয়) ফেসবুকে সেয়ার করেন। এর পর আপনার লেখাটি হারাতে শুরু করে।
 কিন্তু ব্লগ বা ওয়েবসাইটের এখানেই সুবিধা। আপনার লেখাটি থেকেই যাবে, যেকেউ যখন খুশি সার্চ করলেই লেখাটি পড়তে পারবে। আমি আমার গল্পগুলিকে প্রেমেরগল্প.কম এ সাজিয়ে রেখেছি। Bengali best love story  Bengali hot story 
এখন ভাবলে অবাক লাগে যে প্রতিমাসে ৭০ হাজারের বেশি মানুষ আমার লেখা পড়েন। না পত্রিকায় লিখে এটা সম্ভব হত না। আজকে কোনও পত্রিকার দিকে বা সম্পাদকের তাকিয়ে থাকতে হয় না। নিজেই নিজের মালিক আজ। চাইলে আপনিও একটা ব্লগ অনায়াসে বানাতে পারেন। ৩০০ টাকা মাত্র খরচ। দেখুন কিভাবে বানাবেন,-   create blog

3. Popularity

অন্যকে দেখে উৎসাহিত হওয়া নতুন নয় আজ। চিরদিন এক মানুষ অন্যকে দেখে উৎসাহিত হয়েছে। একসময় শচীন ছিলেন আমার কেন্দ্রবিন্দু। আমি চাইতাম শচীনের মতো কিছু হতে। নায়ক না গায়ক দেখেও এমন মনে হয়েছে বহুবার। ঠিক তেমন ভাবেই বিখ্যাত ব্লগারকে দেখে অনেকেই উৎসাহিত হয়ে ব্লগিং শুরু করেন। ব্লগিং এর জন্য আমার উৎসাহ অনেক ব্লগার। তাদের ভেতর দুজন প্রধান নিয়েল পাটেল আর হর্ষ আগরবাল
World class 2 blogger
Best blogger

4. Earning 

৭০% এরও বেশি ব্লগার ব্লগিং করেন রোজগার করার জন্য। কিন্তু মনে রাখবেন এই ৭০% এর ৭০% সফল হতে পারেন না একটাই কারণে যে, তারা ব্লগিং করতে আসেন শুধুমাত্র রোজগার করার জন্য। ব্লগিং এ প্রচুর টাকা রোজগার করা সম্ভব তখন, যখন আপনি ব্লগিং ভালবাসবেন। ব্লগিং কিন্তু খুব একঘেয়েমির কাজ তাই সবার ভাললাগে না। কিন্তু যদি এই কাজ কয়েকমাস টানা করতে পারেন দেখবেন নেশা ধরে গেছে। 
ব্লগিং থেকে কত টাকা আয় হতে পারে তা আপনি কল্পনাও করতে পারবেন না।
 হর্ষ আগরবাল শুধুমাত্র Google AdSense  এ কোটি টাকার বেশি  রোজগার করেন প্রতিমাসে।এটা গল্প নয়, সত্যি। এছাড়াও রয়েছে এফিলেট মার্কেটিং ।
আপনি যদি ভালবাসার সঙ্গে আপনার পছন্দের বিষয়ে ব্লগিং করেন তাহলে ১০১% সফল হবেন। শুধু এটুকু জানিয়ে রাখি একটা ভাল ব্লগ কয়েকটা চাকরির সমান 😊

5. Advertising and affiliate marketing

অনেকেই নিজেদের ব্যবসা বাণিজ্য কিংবা প্রোডাক্ট এর বিজ্ঞাপন দেওয়ার জন্য ব্লগ বানান। অনেকে আবার সরাসরি প্রোডাক্ট বিক্রিও করেন। কিন্তু এই দুই এর চেয়েও আরও বেশি ইন্টারেস্টিং হল তৃতীয় কারণ, Affiliate marketing   
Affiliate marketing হল অন্যের প্রোডাক্ট বিক্রি করে কমিশন কামানো। যেমন ধরুন আপনি আমাজন.কম এর এফিলিয়েট সাইটে গিয়ে রেজিষ্ট্রেশন করলেন, তারপর সেখান থেকে যেকোনও প্রোডাক্টের লিংক সেয়ার করলেন ফেসবুক টুইটার হোয়াটসঅ্যাপ বা অন্য কোথাও। সেই লিংক থেকে গিয়ে কাস্টমার যদি যেকোনো প্রোডাক্ট কেনে তাহলে আপনি কমিশন পাবেন। ধরুন আপনি মোবাইলের লিংক সেয়ার করেছিলেন কিন্তু আপনার লিংকে ক্লিক করে আসা কাস্টমার মোবাইল না কিনে অন্যকিছু কিনল, আপনি তাও কমিশন পাবেন। Shopify হচ্ছে বেস্ট এফিলিয়েট ওয়েবসাইট। অনেকে এখান থেকে হাজার হাজার টাকা রোজগার করে।         

অন্যান্য কারণ 
হাজার হাজার মানুষ হাজার হাজার কারণে ব্লগিং করেন আমি বেস্ট ফাইব উল্লেখ করলাম। এবার ঠান্ডা মাথায় আপনি চিন্তা করুন আপনার ব্লগিং এ আসা উচিৎ না উচিৎ নয়। আমি এমন মানুষও দেখেছি শুধু টাইম পাস করার জন্যেও কেউ কেউ ব্লগিং করেন। ছবি আঁকা, গল্প পাঠ, কবিতা পাঠ, নিউজ, হারানো স্বপ্ন পুরণের আশাতেও আবার অনেকে ব্লগিং করে। অনেকেই লেখক হওয়ার জন্যেও ব্লগিং করে। রান্না থেকে রাশিফল কাশি থেকে কাশ্মীর সব নিয়েই ব্লগ আছে। চাইলে আপনিও ব্লগিং করতে পারেন। ভাললাগলে নেশা পেশা সবই হবে। 
Bengalweb নিয়ে মন দিয়ে কাজ করলে আপনি অবশ্যই সফল হবেন। Bengalweb এখন দ্রুত গতি নিয়েছে। এটাই উপযুক্ত সময়। 
ব্লগিং করার জন্য কোনও বয়সের লিমিট নেই, আপনি চাকুরিজীবী হলেও করতে পারবেন। ইচ্ছে থাকলে আজেকেই শুরু করুন। 

কিভাবে শুরু করবেন ভাবছেন? নিচে লিংক দিলাম সব ওখানে পাবেন। 

আপনি চাইলে আমাদের ওয়েব ডিজাইনারকে দিয়েও ব্লগ ওয়েবসাইট বানাতে পারেন। ব্লগার হলে ২৫০০-৩০০০ টাকা খরচ পড়বে। ওয়ার্ডপ্রেস হলে ৫০০০-৭০০০ খরচ পড়বে। আমাদের নিচের পোস্টগুলো দেখুন নিজেও অনায়াসে বানাতে পারবেন।  

ব্লগিং করে আয়-

ব্লগিং থেকে আয় করার জন্য হাজার হাজার পদ্ধতি আছে। ব্লগিং করে আয় করতে কোন পদ্ধতিটি আপনাকে সবচেয়ে বেশি সাহায্য করবে বলে মনে হয় সেটা আপনাকে নিজেকে নির্বাচন করতে হবে।
আপনি ব্লগিং থেকে এফিলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমে ইনকাম করতে পারেন আবার গুগল এডসেন্স এর মাধ্যমে ইনকাম করতে পারেন। নির্দিষ্ট কোন টপিকের উপর যদি আপনার ব্লক-টি হয় সেক্ষেত্রে বিভিন্ন কোম্পানি যারা সেই টপিকের উপর ব্যবসা-বাণিজ্য করে থাকে তারাও সরাসরি এডভেটাইজ করে থাকে ব্লগে।

আপনি রান্নার রেসিপি থেকে শুরু করে ভ্রমণের উপর ব্লগিং করতে পারেন আবার ব্লগিং থেকে শুরু করে এফিলেট মার্কেটিং পর্যন্ত আপনার ব্লগের সীমা বাড়াতে পারেন।

ব্লগিং ২০২০ বেস্ট টপিক
  • ব্লগিং করার জন্য ব্লগিং নিজেই একটি দারুণ টপিক।
  • ভ্রমণ আজকের দিনে ব্লগিং করার দারুন একটি উপাদান।
  • রান্নার রেসিপি দারুন টপিক।
  • বিউটি কেয়ার ভাল টপিক ২০২০ ব্লগারদের জন্য।
  • স্বাস্থ্য  সচেতনতা


ব্লগারের জন্য সেরা ব্লগিং টপিক

কোন টপিক বেস্ট; নতুন ব্লগার এর জন্য 

আজকের দিনে অনেকেই Blogging করতে চায়, কিন্তু কোনটা Best Blogging Topic সেটাই ঠিক করতে পারে না। আজকে আলোচনা করব Best Blogging Topic নিয়ে। চলুন দেখা যাক কি কি আছে Best Blogging Topic  

Best blogging topic
Bangla Blogger

2019 Best Blogging Topic for new Blogger


1. শরীর সাস্থ 

banglablogger.in

সব দিক বিচার করে Health and fitness Blog হচ্ছে সব চাইতে বেস্ট নতুন ব্লগারের জন্য। অন্যকিছু নিয়ে শুরু করলেও প্রথমে কোনও নতুন ব্লগে ট্রাফিক আসবে না। এটাতেও আসবে না। কিন্তু সোশাল সেয়ারের মাধ্যমে এই টপিকে প্রচুর ট্রাফিক আসবে। Health and fitness নিয়ে মানুষের চিন্তা সব চাইতে বেশি। তাই জানতেও চায় বেশি। আরেকটা সুবিধা হল কোয়ালিটির এড দেয় গুগল। অর্থাৎ এই ব্লগ থেকে আয় দারুণ হবে বলাই যায়।
Health and fitness নিয়ে লিখলে আরেকটা সুবিধা যে, টপিকের অভাব হবে না। প্রচুর উপকরণ পাবেন লেখার জন্য। Affiliates marketing করতে পারবেন অনায়াসে। ধরুন রোগা হওয়ার উপায় সম্পর্কে লিখছেন সেখানে যদি আপনি আমাজন বা ফ্লিপকার্টের লিংক সেয়ার করেন তাতে বিক্রির সম্ভানাও বাড়বে। এভাবেও অনেকে প্রচুর টাকা ইনকাম করে। 

2. ভ্রমণ 

banglablogger.in

দিন দিন ভ্রমণ প্রিয় মানুষের সংখ্যা বাড়ছে। আপনি কল্পনাও করতে পারবেন না আজকের ডেটে মানুষ কি পরিমানে travel blog পড়ে। আপনি যদি ঘোরাঘুরি করেন তাহলে তো অনায়াসে ভ্রমণ নিয়ে ছবি সহ লিখতে পারবেন।আর যদি ঘোরাঘুরি নাও করেন তাহলেও এক জায়গা সম্পর্কে পাঁচ ছটা ব্লগ পড়ে অনায়াসে সুন্দর ভাবে লিখিতে পারবেন। ছবি ইন্টারনেট থেকে নিয়ে এডিট করে ব্যবহার করতেও পারবেন।
Google map এ এক একটা ছবি কয়েক লাখ করে ভিউ হয়। বহু ব্লগার শুধু মাত্র লেখার জন্যই ঘুরে বেড়ান। তবে ট্রাভেল ব্লগে নির্ভুল তথ্য দিতে হয়। কোনরকম ভুল তথ্য লোককে বড় রকম বিপদে ফেলতে পারে।  

3. বিউটি এবং ফ্যাশন 

Beauty and fashion নিয়ে নতুন করে কিছুই বলার নেই, আপনিও জানেন মেয়েদের মন নিশ্চয় বুঝতে পারছেন কি কি নিয়ে লিখতে হবে। যেমন ফর্সা হওয়ার বেস্ট ১৩ উপায়  আচ্ছা আজকেই একটা কাজ করুন, কোন এক বান্ধবীকে বলুন, হ্যাঁরে তুই দিন দিন কাল হয়ে যাচ্ছিস কেন ? এর পর দেখুন ওর মেকাপ কেমন বাড়বে দিন দিন (পড়াশুনে করে লিখবেন, যা খুশি ভুলভাল লিখলে ব্লগ দুদিনও চলবে না) 

        

4. সম্পর্ক 


এই topic এর উপর খুব ভাল কাজ করতে পারবেন যদি একটু সিরিয়াস হন। সম্পর্ক নিয়ে আজকের দিনে সবাই দুশ্চিন্তায় ভুগে তাই কিভাবে রিলেশন ঠিক রাখতে হবে সেটা নিয়ে লিখলে প্রচুর পাঠক পাবেন। কিন্তু একটা বিষয় মাথায় রাখবেন, ভুলভাল লিখে ভুল পরামর্শ মোটেও দেবেন না। Relationship blog হচ্ছে আদর্শ ব্লগিং সাইট।      

banglablogger.in

5. খেলাধূলা 


আপনি নিশ্চয় pubg game এর কথা শুনেছেন। কত মানুষ খেলে তাও হয়তো জানেন। আপনি চাইলে এই সব বড় বড় গেম গুলোর রিভিউ লিখতে পারেন। কিংবা গেম ডাউনলোড করার ওয়েবসাইট বানাতে পারেন। যেটাই করুন দুটোতেই প্রচুর আয় হবে গুগল এড এর মাধ্যমে। 

যে পাঁচটা টপিক বললাম এই পাঁচটাকে আজকের দিনের Best Blogging Topic বলতে পারেন। এর চেয়ে ভাল সর্বসাধারণের জন্য আর কিছু আমার অন্তত মাথায় নেই। তবে হ্যাঁ ব্লগিং আগ্রহের বিষয়ের উপর করা ভাল। তাতে এনার্জি বাড়বে কমবে না। আপনি ক্রিoকেট ফুটবল থেকে শুরু করে কোচিং পর্যন্ত যেকোনো বিষয়ের উপর ব্লগিং করতে পারেন।     

কিভাবে ব্লগ শুরু করবেন জানুন
    


ভাল আর্টিকেল লেখার ১০টি পদ্ধতি

১০ টি উপায় কিভাবে ভাল আর্টিকেল লিখতে হয়, যাতে গুগল সার্চে আসে 

SEO Conten- আপনি যদি ব্লগ বা ওয়েবসাইট বানিয়েছেন তাহলে SEO Content কিভাবে লেখে না জানা থাকলে খুব সমস্যা হবে। দেখুন কিভাবে SEO Content লিখতে হয়।  



আজকের পোস্ট SEO Content 


SEO content


Top 10 Bengali tips for best SEO content 2020


1. লেখার আগে চিন্তা করুন

আপনি যে বিষয়ের উপর লিখছেন তা ভালকরে সাজিয়ে গুছিয়ে নিন। কোন কোন টপিককে আপনার প্রধান টপিকের সঙ্গে রাখবেন সেগুলো আগাম নোটস করে রাখুন। ছোট ছোট টপিকগুলোকে এমম ভাবে সাজান যাতে প্রধান টপিক আরও বেশি গুরুত্ব পায়। যে বিষয়ের উপর লিখছেন সেই বিষয়ে আপনার যথেষ্ট জ্ঞান থাকতেই হবে। ভুল তথ্য মোটেও দেবেন না।

2. কোন শব্দের উপর কাজ করবেন তা জানুন আগে 

SEO content লেখার আগে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ  কাজ হল keyword planner ব্যবহার করা। যদি ফ্রি keyword planner ব্যবহার করতে চান তাহলে Google keyword planner ব্যবহার করুন। কোন keyword কত সার্চ হচ্চে এবং তার মূল্য কত (CPC) সেটা আগে জানতে হবে। Low competition keywords ব্যবহার করুন তাতে সাফল্য দ্রুত আসবে। CPC অবশ্যই খেয়াল রাখবেন। বেশি cpc অথচ Low competition হলে তো সোনায় সোহাগা।   
  


3. প্রপার  Heading এবং subheadings ব্যবহার করতে হবে 

Heading and subheading যথাযথ ভাবে ব্যবহার করতে হবে প্রতিটি আর্টিকেলের ভেতর। Heading and subheading গুগলকে আর্টিকেল সম্পর্কে উন্নত ধারণা দেয়। দ্রুত Rank করতে সাহায্য করে। Heading and subheading এর ভেতর আপনার main keyword ব্যবহার করুন। যাতে গুগল সহজেই বুঝতে পারে কোন keyword আপনি search এ আনতে চাইছেন। 

4. আগের পোস্টের উল্লেখ

আপনার প্রধান পোস্ট পড়ার আগে পঠককে আপনার আগের গুরুত্বপূর্ণ পোস্ট সম্পর্কে আবগত করুন। এতে ভিউ যেমন বাড়বে তেমন প্রতিটি পোস্টের গুরুত্ব বাড়বে।  

5. নিজের অন্য আর্টিকেল এর সঙ্গে লিংক করা     

Internal linking হচ্ছে SEO এর জাদুগর। Internal linking ম্যাজিকের মতো কাজ করে। আপনার প্রতিটি রিলেটেড পোস্টকে একে অপরের সঙ্গে যুক্ত করুন। যেমন ধরুন মাছ ধরা নিয়ে আপনি পোস্ট লিখছেন এখন তাহলে মাছের খাবার, চার, বড়শি, যা যা রিলেটেড পোস্ট আরও আছে প্রতিটিকে লিংক করান। এতে আপনার প্রতিটি পোস্ট দ্রুত Rank করবে। 

6. একই টপিকের উপর লেখা অন্য ব্লগের আর্টিকেলের সঙ্গে লিংক করা     

External linking অনেকেই করতে চান না। এটা মারাত্মক ভুল। অনেকেই ভাবেন অন্যের ওয়েবসাইটের লিংক দিয়ে আমি কেন আমার ভিউয়ারকে বাইরে পাঠাব! কিন্তু external linking গুগলের কাছে খুব গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। External linking আপনার পোস্টের সম্মান ১০০% বাড়ায়। আপনি অন্যের পোস্ট লিংক করছেন মানে আপনি নিজের কাজের প্রতি/পাঠকের প্রতি যত্নশীল এবং দায়িত্ববান। External linking প্রমাণ করে যে আপনি নিজের পোস্টকে না পাঠকের চাহিদাকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন। এটাই গুগলের প্রধান দাবী। এতে আপনার পোস্টের Rank শুধু বাড়বে তাই না আপনার পোস্টের ভেলুও বাড়বে বহুগুণ ।

7. নিজের তোলা বা তৈরিকরা ছবি ব্যবহার করুন 

এই ভুল বেশিরভাগ মানুষ করেন। ইন্টারনেট থেকে ছবি ডাউনলোড করে নিজের পোস্টে ব্যবহার করেন। কিন্তু এতে কপিরাইট প্রবলেম তৈরি হয় দিন দিন। যাতে পুরো ওয়েবসাইটের Rank খারাপ হয়। Canva বা যেকোনও যায়গা থেকে নিজের পোস্টের ছবি নিজে বানান। এতে আপনার পোস্ট শুধু নয় ওয়েবসাইটের ভ্যালুও বহু বাড়বে।   


8. বেশি শব্দের আর্টিকেল লিখতে হবে 

প্রতিটি পোস্ট যেন মিনিমাম ৩০০ শব্দের বেশি হয়। চেষ্টা করবেন ৮০০+ শব্দের আর্টিকেল লিখতে। যে বিষয়ে পোস্ট লিখছেন সেই বিষয় গুগলে লিখে প্রথম ১০টা পোস্ট দেখুন। ওই ১০ পোস্টের যেটাতে সবচেয়ে বেশি শব্দ ব্যবহার হয়েছে সেটার চেয়ে বেশি শব্দের পোস্ট লেখার চেষ্টা করবেন। পাঠক ডেকে আনা শুধু নয় পাঠক ধরে রাখাও আপনার দায়িত্ব।  যত বেশি সময় পাঠক আপনার পোস্ট পড়বে তত বেশি হাই হবে Ranking . বেশি সময় পাঠকের থাকা গুগলকে পোস্টের গুরুত্ব সম্পর্কে জানান দেয়। পাঠকের চাহিদা যদি না মেটে তাহলে পোস্টের Rank ক্রমাগত খারাপ হতেই থাকে।  

  

9. নিয়মিত  আর্টিকেল পোস্ট করতে হবে

চেষ্টা করবেন নিয়মিত পোস্ট লিখতে। রেগুলেটরি গুগলের কাছে পজেটিভ বার্তা পৌঁছায়। আপনার যে বিষয়ের সাইট সেই বিষয়ের বাইরের পোস্ট লিখবেন না। খিচুড়ি ওয়েবসাইট গুগলে rank করে না। 

10. পোস্ট সেয়ার করাও যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ     

পোস্ট পাব্লিশ করার পর ম্যাক্সিমাম সেয়ার করার চেষ্টা করুন। ফেসবুক টুইটার গুগল+ রিডিট টেলিগ্রাম টাম্বলার হোয়াটসঅ্যাপ । পোস্ট পাব্লিশ হওয়ার পর ৩০ মিনিটের ভেতর যত খুশি সেয়ার করুন। আর অবশ্যই গুগল ওয়েব মাস্টারটুল বিংগ ওয়েব মাস্টারটুলে পোস্ট আপডেট করবেন।  এছাড়া pingomatic এ পোস্ট ping করবেন। 

পরিনতি       

এই দশটা নিয়ম মেনে দেখুন পোস্ট ঝড়ের মতো rank করবে। মন দিয়ে কাজ করে যান দেখবেন SEO সম্পর্কে আপনার ধারণা আরও গভীর হবে।     

How to connect a custom domain name to blogger/blog/website

ব্লগারের সঙ্গে ডোমেইন কিভাবে যুক্ত করতে হয়

Blogger to castom domain

কিভাবে castom domain ব্লগারে কানেক্ট করবেন জেনেনিন। আপনার যদি castom domain কেনা হয়েছে তাহলে পুরো প্রসেসিং দেখেনিন।
কিভাবে ডোমেইন কিনবেন

যদি castom domain কেনা হয়নি তাহলে নিচের লিংকে গিয়ে জানুন কিভাবে কিনবেন

সবার প্রথমে আপনার blogger একাউন্টে লগইন করুন। সেখান থেকে আপনাকে সেটিংসে যেতে হবে। নিচের ছবি দেখুন।
  

Settings > Basic > Blog Address > Edit 
এডিট করে আপনার কেনা ডোমেইন নাম পুট করুন www দিয়ে। উদাহরণ www.premergolpo.com এর পর যখন সেভ করবেন  তখন একটা এরর সো করবে। 
এর পরের কাজ যেখান থেকে ডোমেইন কিনেছেন সেখানে গিয়ে বাকি কাজ করা। পুরো স্টেপ বাই স্টেপ ধরমেন্দ্র কুমার মহাশয়ের ভিডিও দেখুন। এক্কেবারে সহজ। ভিডিও দেখলেই বুঝতে পারবেন। 

কিভাবে ডোমেইন ব্লগারে কানেক্ট করবেন





উপরের ভিডিও থেকে বিস্তারিত ভাবে সব দেখতে পাবেন। আশাকরি একবিন্দুও প্রবলেম হবে না। এর পরেও প্রবলেম হলে কমেন্ট করে মোবাইল নম্বর জানাবেন আমরা কল করে নেব।

 Blogger এর সঙ্গে castom domain যুক্ত হওয়ার পর আপনাকে প্রফেশনাল পোস্ট লেখা শুরু করতে হবে। যেমন তেমন ভাবে পোস্ট লিখে কোনও লাভ নেই। How to write proper article এটা না জানলে blogging করে কোনও  লাভ নেই।
এর পর শেখাব কিভাবে prepare SEO friendly article লিখতে হয়।

Start your Bengali blog today

Bengali blog শুরু করতে চাইছেন? তাহলে দেরি করবেন না

Bangla blog

Bangla blogging- শুরু করার কথা যদি ভাবছেন তাহলে এটাই সেরা সময়। নতুবা পরে শুরু করে আর বিশেষ লাভ হবে না। নিজেকে প্রকাশ করুন। Bangla Blogging এ আমরা সাহায্য করব।

২০২০ সাল বাংলায় ব্লগিং শুরু করার সবচেয়ে উপযুক্ত সময়। আপনি যদি বাংলায় ব্লগিং শুরু করার কথা ভাবছেন তাহলে আমি অন্ততপক্ষে আপনাকে বলব আরকি আপনি বাংলায় ব্লগিং শুরু করুন আর দেরি করবেন না
২০১৯-২০২০ থেকেই ধীরে ধীরে বাংলায় ব্লগিং করার প্রবণতা শুরু হয়েছে, আপনি যদি এখন ব্লগিং শুরু না করেন তাহলে আপনার জন্য ব্লগিংটা অনেক দেরি হয়ে যাবে। 

Blogging in Bengali

ব্লগিং শুরু করতে চাইলে আপনি যেকোনও ভাষায় যেকোনও সময় শুরু করতে পারেন। কিন্তু প্রথমেই একটা কথা বলে রাখি Blogging যদি আপনি টাকা ইনকামের জন্য শুরু করতে চাইছেন তাহলে বলব, এই কাজ আপনার জন্য নয়। Blogging টাকা রোজগারের উদ্দেশ্যে তৈরি করতে চাইলে Blogging করার ইচ্ছা বেশিদিন টিকবে না।     

Blogging হচ্ছে মনের ইচ্ছেগুলোকে মেলে ধরার বা তুলে ধরার জায়গা। যা আপনি পারেন সেটাই আপনি পারেন, তার বেশি বা কম নয়। যা আপনি পারেন তা যদি অন্যকে শেখাতে চান তাহলে Blogging করুন। অন গড বলছি এত টাকা রোজগার হবে যা আপনি কল্পনাও করতে পারবেন না। কিন্তু টাকা রোজগারের উদ্দেশ্যে এই ফিল্ডে এলে কিছুই হবে না। 

আপনি যা পারেন তাই নিয়ে Blogging করুন, যে ব্লগিং থেকে বেশি আয় হবে সেই Blogging করতে যাবেন না প্লিজ। আগ্রহ হারিয়ে ফেলবেন।আপনি যা ভাল পারেন সেটাই লিখুন দেখুন সবাই পড়ে আনন্দ পাবে, আপনিও আনন্দ পাবেন। এতেই আয়ও হবে অনেক বেশি। যেমন ক্যান্সার বা ইন্সুইরেন্স এর উপর Blogging করলে প্রচুর আয় হবে সারা দুনিয়া জানে কিন্তু তাই বলে আপনিও যদি ভাবেন আপনিও ওই নিয়েই লিখবেন তাহলে মারাত্মক ভুল হবে। হ্যাঁ যদি আপনি এই বিষয়ে এক্সপার্ট তাজলে ওয়েলকাম। ক্যান্সার আর ইন্সুইরেন্স এর উপর বড় বড় কোম্পানি কাজ করছে তাই Google rank করা কত কঠিন হবে কল্পনাও করতে পারবেন না।
যা আপনি ভাল পারেন তাই দিয়েই শুরু করুন পথচলা। আপাতত আপনি যা পারেন তার একটা ভাল নাম বাছুন। যেমন আমার আরেকটা website premergolpo.com হ্যাঁ আমি প্রেমের উপর কাজ করতে পারি। আর শুধুমাত্র শেখাব বলেই শুরু করলাম Bangla Blogger.
আজ এই পর্যন্ত কালকে শুরু করব কিভাবে blogging শুরু করবেন সেই নিয়ে। চিন্তা নেই খুব সহজ ভাবে শেখাব। আগামীকাল হতেও পারে আপনিই হবেন Blogging King.